নিয়ামতপুরে লকডাউন কার্যকরে তৎপর উপজেলা প্রশাসন-পুলিশ

নওগাঁ থেকে সিরাজুল ইসলামঃ নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে পালন করা হচ্ছে সরকার ঘোষিত লকডাউন। লকডাউনের আওতার বাইরে যে সকল জরুরি নিত্য প্রয়োজনীয় দোকানপাট খোলা হয়েছে তাছাড়া বন্ধ রাখা হয়েছে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। নিয়ামতপুর উপজেলা জুড়ে লকডাউন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে যৌথভাবে মাঠে কাজ করছে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ।
শহর অভিমুখী বহিরাগতদের ঠেকাতে উপজেলার দুটি চেষ্টপোষ্টসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বা সড়কে টহলরত অবস্থায় রয়েছে পুলিশ প্রশাসন। থানা সূত্রে জানা যায়, চেকপোস্টগুলোতে প্রতি ৮ ঘণ্টা করে তিন শিফটে ২টি টিম কাজ করবে। বুধবার (১৪ এপ্রিল) উপজেলা ঘুরে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশের এমন তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে।
নিয়ামতপুর উপজেলা বাজারে দুপুর ২টায় লকডাউন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে নিয়ামতপুর উপজেলার প্রাণকেন্দ্র অডিটোরিয়াম মার্কেট, বোর্ডিং মার্কেট, রামনগর মোড়সহ বিভিন্ন অলিগলি ঘুরে দেখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়া মারীয়া পেরেরা। মনিটরিংয়ের সময় তার সাথে ছিলেন, নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ হুমায়ন কবির, নিয়ামতপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) হুমায়ন কবির ও ডিষ্ট্রিক স্পেশাল ব্রাঞ্চ (ডিএসবি) আকরাম হোসেনসহ পুলিশের একটি টিম।
মাইকিং করে জনসচেতনতামূলক বক্তব্যের মাধ্যমে উপজেলাজুড়ে মহড়া দেন তারা। সরকার ঘোষিত লকডাউন চলা অবস্থায় আইন ভঙ্গের দায়ে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানাও আদায় করা হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়া মারীয়া পেরেরা বলেন, করোনা ভাইরাস ইতোমধ্যে ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। প্রায় প্রতিদিনই দেশে সংক্রমণ ও মৃত্যুর রেকর্ড ভাঙছে। তাই আমাদের দীর্ঘদিন ভালো থাকার জন্য কয়েকটি দিন কষ্ট করতে হবে। সরকার যে লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছে তা সঠিকভাবে পালনের মাধ্যমে করোনাভাইরাস থেকে নিজে ও পরিবারকে বাঁচাতে হবে। তিনি সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পাশাপাশি সরকার ঘোষিত লকডাউনের প্রতি সম্মান জানিয়ে ঘরে থাকার আহবান জানান।
তিনি আরো বলেন, সরকারের আইনের প্রতি সবাইকে শ্রদ্ধাশীল হওয়া উচিত। জরুরি প্রয়োজনে যে সকল প্রতিষ্ঠান খোলা রাখা হয়েছে তাদের সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। যারা আইন লঙ্ঘন করবে তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জেল জরিমানা করা হবে।
নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ন কবির বলেন, সবাইকে কঠোরভাবে লকডাউন মেনে চলতে হবে। একেবারে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া কোনভাবে ঘর থেকে বের হওয়া যাবেনা।
তিনি আরও বলেন, উপজেলায় বহিরাগত ঠেকাতে বিভিন্ন প্রবেশমুখে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। কেউ ফাঁকি দিয়ে উপজেলায় প্রবেশ করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

     More News Of This Category

Our Like Page