লকডাউনের তৃতীয় দিনেও চেকপোস্টে যৌক্তিক কারণ দেখাতে না পারলে ফেরত

সুমন কুমার বিশ্বাস
জেলা প্রতিনিধি

চেকপোস্টে যৌক্তিক কারণ দেখাতে না পারলে ফেরত
সর্বাত্মক লকডাউনের প্রথম দিনেই আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা চোখে পড়ার মতো। রাস্তার মোড়ে মোড়ে অস্থায়ী চেক পোস্ট বসেছে। প্রায় প্রতিটি গাড়িকেই দাঁড় করিয়ে গন্তব্যের কারণ জানতে চাচ্ছে পুলিশ। যৌক্তিক কারণ দেখাতে না পারলে তাদের ফেরত পাঠানো হচ্ছে। শনিবার (৩ জুলাই) ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার হাটফাজিলপুর বাজারের বিভিন্ন চেকপোস্ট ঘুরে এসব চিত্র দেখা গেছে।

হাটফাজিলপুর ক‍্যাম্প ইনর্চাজ এস আই সাজ্জাদ হোসেনের নেতৃত্বে কাজ করছেন এ এসআই মাসুদ হাসান সহ
বিভিন্ন মোড়ে চলাচল নিয়ন্ত্রণে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে কঠোর অবস্থান নিতে দেখা যায়। তবে এবার শুরু থেকেই বলা হয়েছিল, কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হবে। প্রয়োজনে জেল জরিমানা করা হবে।

সরেজমিনে সেসব চিত্রের প্রতিফলন ঘটেছে, বিশেষ করে প্রধান সড়কে। প্রয়োজন ছাড়া কাউকে চলাচল করতে দেয়া হচ্ছে না। বিভিন্ন মোড়ে আছে পুলিশের চেকপোস্ট। রাস্তায় বের হওয়ার যৌক্তিক কারণ না দেখাতে পারলে তাদের ফেরত পাঠানো হচ্ছে চেকপোস্ট থেকে। প্রতিটি মোটরসাইকেল ও ব্যক্তিগত (প্রাইভেট কার) গাড়িকে দাঁড় করিয়ে গন্তব্যে যাওয়ার কারণ বিষয়ে প্রশ্ন করা হচ্ছে। তবে মালবাহী গাড়িকে আগেই রাস্তা ফাঁকা করে দেয়া হচ্ছে চলাচলে। তবে পায়ে হেঁটে চলাচলরত পথচারীদের সংখ্যা নেই বললেই চলে।

কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে গতকাল বুধবার (৩০ জুন) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বেড়ে যাওয়ায় বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে ৭ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। করোনাভাইরাস সংক্রমণের বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় ২১টি শর্ত যুক্ত করে এই বিধিনিষেধ আরোপ হয়েছে বলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়।

     More News Of This Category

Our Like Page